Blog

Some Interesting Fact About Sleep Apnea

😴 Sleep Apnea 😴

🔰 Sleep apnea হলো ঘুমের সময় শ্বাস-প্রশ্বাস এ ব্যাঘাত জনিত একটি রোগ। এই রোগে ঘুমের মধ্যে ১০ সেকেন্ড বা এর বেশি সময় শ্বাস প্রশ্বাস বন্ধ থাকতে পারে।

(তাহলে আপনি প্রশ্ন করতে পারেন, ১০ সেকেন্ড পরে কিভাবে আবার breathing শুরু হবে? জানব পড়ার ফাঁকে)।

আমরা ফিরে আসি sleep apnea তে।

⚠️ Sleep apnea এর 2 type আছে-

1) Obstructive sleep apnea
2) Central sleep apnea

আলোচনা করব Obstructive Sleep Apnea এর etiology নিয়ে:

🚫Obstructive sleep apnea তে মূলত airway obstruction হয়।
এখন প্রশ্ন হলো কাদের ক্ষেত্রে এই obstruction commonly হয়?

১) যদি Adenotonsilar hypertrophy থাকে তাহলে Obstructive sleep apnea হতে পারে। কারণ adenotonsilar hypertrophy মানে abnormal growth of pharyngeal tonsil
& palatine tonsil। এর ফলে upper airway cessation হবে এবং ultimately obstructive sleep apnea হবে। বাচ্চাদের ক্ষেত্রে এই cause টা common।

২) যারা Morbid obese (মানে যাদের BMI more than 35 kg/m2) তাদের obstructive sleep apnea হতে পারে।

🚫Morbid obese person এর কেন Obstructive sleep apnea হয়?🤷‍♂️

➡️ কারণ Morbid obese person এ অনেক soft tissue growth হয়, যার কারণে pharyngeal cavity এর space কমে যায়। এছাড়া deep sleep এর সময় tongue & pharyngeal muscle গুলো relax থাকে & gravity এর জন্য background fall হয়ে pharyngeal cavity space আরো decrease করে, So breathing obstruction হবে। তার মানে Obstructive sleep apnea হবে।

শুরুর দিকে আমাদের একটা প্রশ্ন ছিল, Sleep apnea তে ১০ সেকেন্ড বা অধিক সময়ের পর কিভাবে আবার breathing শুরু হবে?

⛔ Ans:
Breathing obstruction হয়ে যখন আপনি ১০ সেকেন্ড বা বেশি সময়ের জন্য apnea তে থাকবেন, তখন body এই condition কে stress হিসেবে নিবে & তখন sympathetic system active হয়ে যাবে।
Sympathetic system active এর ফলে আপনার subcortical alertness বাড়বে যার কারণে ঐ ১০ সেকেন্ড পর পুনরায় breathing শুরু হবে। কিন্তু কিছুক্ষণ পরে আবার breathing obstruction হবে, আবার apnea হবে ১০সেকেন্ড এর জন্য, আবার breathing শুরু হবে এবং এভাবেই চলতে থাকবে।

[মনে রাখতে হবে, এক্ষেত্রে Subcortical alertness increase হলেও patient এর Cortical awareness থাকে না, So patient এর রাতের ঘুম নিয়ে complain থাকবে না, বরং রাতে patient এর নাক ডাকার শব্দে যারা ঘুমাতে পারে না তারা complain করবে। যেমন- Husband এর যদি OSA (Obstructive Sleep Apnea) থাকে তাহলে wife complain করবে]

Long duration এ Obstructive sleep apnea থাকার জন্য যে সব complication হতে পারে:

♦ Arrhythmia
♦ HTN (Hypertension)
♦ Coronary artery disease
♦ Heart failure
♦ Stroke

রোগীর যেসব Symptoms থাকতে পারে:

1) Noisy breathing (নাক ডাকা)
2) Daytime sleepiness (রাতে ঘুমে বার বার Distutb হচ্ছে তাই patient এর দিনে ঘুম ঘুম ভাব থাকবে 😴)
3) সকালে মাথা ব্যথা থাকতে পারে 🤕
4) Chronic Fatigue
5) Sleep Disruption

Diagnosis কিভাবে করবেন?

➡️ Polysomnography Test এর মাধ্যমে।
এছাড়া রোগী নাক ডাকে কিনা, Weight বেশি কিনা, দিনের বেলা অতিরিক্ত ঘুম ঘুম ভাব থাকে কিনা এসব history দেখতে হবে।

Treatment:

1) Weight loss (যদি Obesity এর জন্য obstructive sleep apnea হয়)।

2) Lifestyle change.

3) CPAP (Continuous Positive Airway Pressure).
★[এটি ছোট একটি যন্ত্র, যা নাসারন্ধ্র দিয়ে গলার ভেতরে একটি পজিটিভ প্রেসার তৈরি করে। এ পজিটিভ প্রেসারকে অনেকটা গলার মধ্যে বাতাসের বেলুন হিসেবে কল্পনা করা যায়। ফলে রোগী ঘুমিয়ে থাকলে গলার চারদিকের মাংসপেশি সংকুচিত হতে পারে না। ফলে তিনি নাক ডাকেন না এবং নিঃশ্বাসও বন্ধ হয় না]।

4) Dental device use করা যায়; যেমন, Mandibular advancement device (MAD) যা রোগীর দুই মাড়ির দাঁতের ফাঁকে ব্যবহার করা হয়।

জয়ন্ত বড়ুয়া
রাগীব রাবেয়া মেডিকেল কলেজ, সিলেট
সেশন: ২০১৭-১৮

প্ল্যাটফর্ম একাডেমিক/ সুমাইয়া আকবর লিরা

Leave a Reply